ইউরোপ সেরা রোনালদোর পর্তুগাল

image

স্পোর্টস ডেস্ক-

ইউরো চ্যাম্পিয়নশিপের বাইরেও ইউরোপের দেশগুলোকে নিয়ে প্রথমবারের মতো আয়োজিত হলো উয়েফা নেশনস লিগ। আর প্রথম আয়োজনকেই ইতিহাস বানিয়ে নিজের করে নিল ক্রিশ্চিয়ানো রোনাল্ডোর পর্তুগাল।

গত কয়েক মাস ধরে চলা এ লিগের ফাইনালে উঠেছিল পর্তুগাল ও নেদারল্যান্ডস। গত ইউরো ও বিশ্বকাপে অংশ নিতে ব্যর্থ হয়েছিল নেদারল্যান্ডস। সেই ব্যর্থতা ঘোচাতে কিছু একটা করে দেখানোর জন্য মরিয়া হয়ে উঠেছিল দলটি।

অতঃপর উয়েফা নেশনস কাপে ঘুরে দাঁড়ান ডাচরা। তুমুল প্রতিদ্বন্দ্বিতায় একরকম যুদ্ধ করে ফাইনালে উঠেন তারা। তবে সিআর সেভেনের দলের কাছে ১-০ গোলে হেরে শিরোপা হাতছাড়া হয় তাদের। শিরোপা পর্তুগালের হাতে উঠলেও পোর্তোর এস্তাদিও দো দ্রাগাওয়ে অনুষ্ঠিত ফাইনালে ফুটবলই জিতেছে বলে মন্তব্য ছুড়ছেন বিশ্লেষকরা।

তা ছিল আক্রমণ-পাল্টাআক্রমণে পূর্ণ অসাধারণ এক ফাইনাল ম্যাচ।

ম্যাচে হেরে গেলেও পরিসংখ্যান কিন্তু নেদারল্যান্ডসের পক্ষেই কথা বলছে। খেলা শেষে টিভি স্ক্রিনে দেখা গেল বল ৫৭ শতাংশ ছিল ডাচদের দখলে।

তবে গোলবার বরাবর শট কম নিয়েছে নেদারল্যান্ডস। সেই খেসারতই হয়তো দিতে হলো তাদের। বলদখলের আধিপত্যে ডাচরা এগিয়ে থাকলেও গোল পোস্টে শট নিয়েছে কেবল ৪টি। যার মধ্যে অনটার্গেট শট ছিল মাত্র ১টি। আর পর্তুগাল শট নিয়েছে ১৮টি। এর মধ্যে অন টার্গেটই ছিল ৭টি।

পরিসংখ্যান যাই বলুক, ফুটবল যে শেষ পর্যন্ত গোলের খেলা তার প্রমাণই দেখাল উয়েফা নেশনস লিগের ফাইনাল ম্যাচটি।

ম্যাচের একমাত্র গোলটি করেন পর্তুগালের গনকালো গুয়েদেস। খেলার ৬০ মিনিটের মাথায় করা সেই একমাত্র দুর্দান্ত গোলেই জয় পায় পর্তুগাল।

অ্যাটাকিং হাফ থেকে বল নিয়ে এগিয়ে যান বার্নার্ডো সিলভা। বক্সের মধ্যে গিয়ে শট নেয়ার ভান করেন।

ডাচ ডিফেন্ডারদের বোকা বানাতে শট না নিয়ে অসাধারণ এক নাটমেগ উপহার দিলেন তিনি।

ব্যাকহিলের আলতো ছোঁয়ায় বলটা ঠেলে দিলেন কিছুটা পেছনে। সেই বলটি পেয়ে যান ২২ বছর বয়সী গনকালো গুয়েদেস।

বক্সের একেবারে ওপর থেকে ডান পায়ের জোরালো এবং লম্বা শট নেন তিনি।

সেই বল আর ডাচ গোলরক্ষক জেসপার সিলেসেন ধরে রাখতে পারেননি। তার হাত ফসকে বল চলে যায় পোস্টের ভেতরে।

ফল ১-০ তে ম্যাচ শেষ করে পর্তুগাল।

মহাদেশীয় টুর্নামেন্ট উয়েফা নেশনস কাপের প্রথম শিরোপা উঠল পঞ্চমবারের বিশ্বসেরা ফুটবলার ক্রিশ্চিয়ানো রোনাল্ডোর হাতে।

আন্দোলন৭১/এস