ঢাকা শুক্রবার,২০,সেপ্টেম্বর, ২০১৯

ইবি রেজাল্ট প্রসেসিং অ্যাপের যাত্রা শুরু

image

ইবি প্রতিনিধি-

ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ে ( ইবি)  রেজাল্ট প্রসেসিং সফটওয়্যারের উদ্বোধন করা হয়েছে। মঙ্গলবার  (১৮ জুন) দুপুর ১২টায় প্রশাসন ভবন সম্মেলন কক্ষে ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় রেজাল্ট প্রসেসিং সফটওয়্যারের উদ্বোধন করেন উপাচার্য প্রফেসর ড. মোঃ হারুন-উর-রশিদ আসকারী।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে  উপাচার্য বলেন, যেখানে যত বেশি কাগজনির্ভরতা সেখানে তত বেশি দুর্নীতির সুযোগ থাকে। ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় একদিন বিশ্বের খ্যাতনামা বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর মতো কাগজবিহীন বিশ্ববিদ্যালয়ে পরিণত হবে। আমরা এখন আন্তর্জাতিকীকরণের পথে রয়েছি। রেজাল্ট প্রসেসিং সফটওয়্যার এই আন্তর্জাতিকীকরণের পথে একটি সিঁড়ি। 

তিনি আরও বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার প্রত্যয়কে সফল করার অংশ হিসেবে আমরা ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের একাডেমিক-প্রশাসনিক সকল ক্ষেত্র ডিজিটালাইজেশন করতে চাই। আন্তর্জাতিক মান বজায় রেখে ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের নিজস্ব ওয়েবসাইট তৈরি করা হয়েছে। 

বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় গ্রন্থাগারের ১লক্ষ ১০ হাজারেরও বেশি বই এখন অনলাইনে যুক্ত হয়েছে। 

রেজাল্ট প্রসেসিং সফট্ওয়্যার তৈরির জন্য ভাইস চ্যান্সেলর রেজাল্ট প্রসেসিং সফট্ওয়্যার প্রস্তুত কমিটির অহব্বায়ক অধ্যাপক  ড. তপন কুমার জোদ্দার এবং আইসিটি সেলের কর্মকর্তাদের ধন্যবাদ জানান।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি প্রো-ভাইস চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. মোঃ শাহিনুর রহমান বলেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সুযোগ্য কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে প্রযুক্তিনির্ভর  বাংলাদেশের পথেই আমাদের যাত্রা করতে হবে। প্রযুক্তি ছাড়া আমাদের বিকল্প কোন পথ নেই। প্রশিক্ষণ কর্মশালা চলাকালে শিক্ষার্থীদের উপকারার্থে কর্মশালায় অংশগ্রহণকারী শিক্ষকদের সফটওয়্যারটিতে যে কোন সংশোধনীর প্রস্তাব আমলে নেয়ার আহ্বান জানান তিনি।

বিশেষ অতিথি ট্রেজারার প্রফেসর ড. মোঃ সেলিম তোহা বলেন, রেজাল্ট প্রসেসিং সফটওয়্যারের কারণে আমাদের রেজাল্ট প্রকাশ দ্রুততর ও নির্ভুল হবে এবং রেজাল্ট সংরক্ষণের ক্ষেত্রেও সুবিধা হবে। বিশ্ববিদ্যালয় ডিজিটালাইজেশনের পথে আরও এক ধাপ এগিয়ে গেলো।

রেজাল্ট প্রসেসিং সফট্ওয়্যার প্রস্তুত কমিটির আহ্বায়ক এবং বায়োমেডিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের সভাপতি প্রফেসর ড. তপন কুমার জোদ্দার উদ্বোধনী অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা করেন।  

তিনি জানান, সফটওয়্যারটি তৈরির ক্ষেত্রে নিরাপত্তার দিকটিতে বিশেষ গুরুত্ব দেয়া হয়েছে এবং এটি ইউজার ফ্রেন্ডলি হবে। এটির ব্যবহার নিয়ে আগামীতে প্রশিক্ষণ কর্মশালারও আয়োজন করা হবে।

অনুষ্ঠানে রেজিস্ট্রার (ভারপ্রাপ্ত), ডিনবৃন্দ, সভাপতিগণ, অফিস প্রধানগণ, বিশ্ববিদ্যালয়ের কর্মরত সাংবাদিকগণ উপস্থিত ছিলেন।

আন্দোলন৭১/আমিনুল/এস