এগিয়ে যাবে আগামীর বাংলাদেশ

image

সাগর চৌধুরী-

ইতিহাস বলে বাংলাদেশের সূচনা হয়েছিল ঝড় ঝঞ্জা আর নানা প্রতিকূলতার মধ্য দিয়ে। সেই সূত্রে বাংলাদেশের অতীত ইতিহাস মোটেও সুখকর নয়। আমরা যেমন স্বাধীনতার জন্য যুদ্ধ করেছিলাম, আমরা যেমন আমাদের অধিকার আদায়ের জন্য যুদ্ধ করেছিলাম, আমরা যেমন খাদ্য, বস্ত্র, শিক্ষা, চিকিৎসা ও বাসস্থান এবং সর্বোপরি অধিকার আদায় করার জন্য আন্দোলন সংগ্রাম করেছি, তেমনি এই সময়ের প্রেক্ষাপটে নিরন্তন আমাদের যুদ্ধ করে চলতে হচ্ছে। 

বর্তমান সময়ে আমরা যুদ্ধ করছি ভেজাল মুক্ত খাবারের জন্য, মাদকের বিরুদ্ধে, দুর্নীতির বিরুদ্ধে, অপশাসন এবং স্বাধীনতা বিরোধী শক্তির বিরুদ্ধে।

স্বাধীনতা যুদ্ধ আমরা যেমন দেখিনি, পাকিস্তানি হানাদার বাহিনীর তান্ডব যেমন আমরা দেখি নি, পাকিস্তানিদের অপশাসন আমরা যেমন দেখিনি তেমনি বাংলাদেশে ভেজাল মুক্ত খাবারের জন্য আন্দোলন ভবিষ্যৎ প্রজন্ম দেখবে না। মাদক প্রতিরোধ অবস্থান দেখবে না, দুর্নীতি এবং অপশাসনের বিরুদ্ধে চলমান সময়ের এই আন্দোলন ভবিষ্যৎ প্রজন্ম দেখবে না। 

সময়ের স্রোতে, কালের স্রোতে একদিন সকল অন্যায় অনিয়ম মুছে যায়। গভীর সমুদ্রের মাঝে সোনালী স্বপ্নের মতো জেগে ওঠা এক সবুজ দ্বীপ, আমরা সেই স্বপ্ন নিয়ে বেঁচে থাকি।

নারী নির্যাতন, নারী ধর্ষণ, শিশু ভ্রুণ হত্যা করা সহ খুন, রাহাজানি মত বিষয়গুলো বাংলাদেশ থেকে চিরতরে বিদায় নিবে এমনই স্বপ্নের জাল বুনি। আজকে দেশের কৃষকের ধানে আগুন দেয়া, মৎস্য সম্পদ নষ্ট করে যেসব দুর্বৃত্তরা, দেশের খনিজ সম্পদ বিদেশিদের হাতে তুলে দেয় যেসব পটিয়ে বাহিনী তারা দেশের মঙ্গলের জন্য সত্যি সত্যি নিজেকে আত্মনিয়োগ করবে আমরা এমন স্বপ্ন দেখি।

আমাদের চলমান জীবনের যেসব দুর্নীতি আছে, যেসব অন্যায় অবিচার সমাজে বিরাজ করছে তথা দেশে বিরাজ করছে একদিন তা চিরতরে বিদায় নেবে। সমাজের যত রকম অসংগতি আছে, সাধারণ মানুষ, পেশাজীবী, মুক্ত চিন্তা বুদ্ধিজীবী সবার জন্যই সুন্দর এক বাসযোগ্য হবে বাংলাদেশ।

মানুষ কখনো মানুষকে অন্যায় ভাবে দাবিয়ে রাখতে পারে না, এক মানুষ কখনোই বারবার অন্যায় করে পার পেয়ে যেতে পারে না, একজন মানুষ কখনো অন্যায় ভাবে আরেক জনের অধিকার থেকে বঞ্চিত করতে পারে না, আমাদের বাংলাদেশ হোক এমন এক দেশ যেখানে সবার অধিকার সমান, যেখানে সবার জন্য জাতীয় পতাকার রং হবে এক, বিচার ব্যবস্থা হবে সবার জন্য সমান। তবেই আমরা স্বাধীনতার স্বাদ গ্রহণ করতে পারব। তবেই আমরা সামাজিক কাঠামোতে, অর্থনৈতিক কাঠামোতে, রাজনৈতিক কাঠামোতে উন্নতির শিখরে উঠতে পারব। আমাদের দেশে সকল নাগরিকের অধিকার হবে সমান, গণতন্ত্রের স্বাদ আমরা সবাই সমান ভাবে ভোগ করতে পারবো।

মানুষের জীবন ক্ষণস্থায়ী হলেও মানুষের কর্মের পরিধি অসীম, এই অসীম ক্ষমতা নিয়ে সমাজের জন্য, দেশের জন্য, দেশের সকল মানুষের জন্য, সকল দেশ প্রেমিক মানুষের এগিয়ে আসা উচিত। 

আমাদের স্বপ্নগুলো এমনও তো হতে পারে, আর কখনোই পত্রিকার পাতায়, টেলিভিশনের পর্দায়, রেডিওর তে শুনবো না, নারী ধর্ষণ, নারীর প্রতি সহিংসতা, শিশু ব্রুণ নষ্ট না করা, দেশের সম্পদ সুষম ভাবে বন্টন করা, খারাপ কাজ থেকে নিজেদের বিরত রাখা সহ দেশের স্বার্থ নষ্ট হয় এমন কাজ থেকে নিজেকে বিরত রাখা। 

আমাদের স্বপ্নগুলো হোক এমন, আমরা আর কখনোই মাদক গ্রহন করব না। আমরা আর কখনোই খাবারে ভেজাল দিব না। আমরা আমাদের সমাজ, দেশকে সব ধরনের দূর্নীতি, অনিয়ম, অপরাধ থেকে মুক্ত রাখব। আমরা আমাদের চারপাশে ঘটা সকল বিষয়কে সঠিক ভাবে পরিচালনা করব। এই দেশ কারো একার হতে পারে না। এই দেশ সবার। সবার চেষ্টায়ই এগিয়ে যাবে আগামীর বাংলাদেশ।

আমাদের দেশের রাজনীতিবিদ, শিক্ষক, কর্মকর্তা-কর্মচারী, সাংবাদিক, ডাক্তার, অর্থনীতিবিদ, কৃষক সহ সকল ধরনের পেশাজীবী দেশকে এগিয়ে নেয়ার ক্ষেত্রে বিশেষ ভূমিকা পালন করে।

তাই দেশ গঠনের ক্ষেত্রে সবার এগিয়ে আসা উচিত, আমাদের স্বপ্ন হোক আগামী পৃথিবীর জন্য, আমাদের স্বপ্ন হোক সমগ্র বিশ্বে বাংলাদেশের মাথা উঁচু করা, আমাদের স্বপ্ন হোক পরবর্তী প্রজন্মকে বাসযোগ্য একটি বাংলাদেশ উপহার দেয়া। 

আপনারা যারা এই নিবন্ধ পড়ছেন সকলকে ধন্যবাদ জানিয়ে আজকের মত শেষ করছি আগামীতে আবার ফিরে আসবো।

আন্দোলন৭১/এস/এএইচ