ঢাকা মঙ্গলবার,২০,আগস্ট, ২০১৯

গাছে ঝুলছিলো কলেজছাত্রের মরদেহ

image

নীলফামারী প্রতিনিধি-

নীলফামারীর সৈয়দপুরে একটি আকাশমনি গাছ থেকে এক কলেজছাত্রের গাছে ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। ঘটনাটি ঘটেছে সোমবার (১২ আগস্ট) সকালে কাশিরাম বেলপুকুর ইউনিয়নের সিপাইগঞ্জ বাজারের দক্ষিণে পানি উন্নয়ন বোর্ডের সেচ নালার পাড়ে।

নিহত ছাত্রের নাম রাকিবুল ইসলাম রকি (১৯)। সে সৈয়দপুর সানফ্লাওয়ার স্কুল অ্যান্ড কলেজ থেকে এবারে উচ্চমাধ্যমিক (এইচএসসি) পরীক্ষায় পাস করেছে। তাদের গ্রামের বাড়ি নীলফামারী সদরের চাপড়া সরমজানী ইউনিয়নের বড়ুয়া পাটোয়ারাীপাড়া এবং তার বাবা নাম মোঃ আফজাল হোসেন। সে পরিবারের অন্যান্যদের সঙ্গে সৈয়দপুর শহরের কয়ানিজপাড়ায় থাকত। ছয় ভাইয়ের মধ্যে সকলের ছোট ছিল রকি।

ঘটনার দিন সকালে কাশিরাম ইউনিয়নের সিপাইগঞ্জ বাজারসংলগ্ন উল্লিখিত একটি গাছে মরদেহ ঝুলতে দেখেন এলাকাবাসী। পরে ঘটনাটি সৈয়দপুর থানা পুলিশকে অবগত করলে পুলিশ এসে মরদেহটি উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসা হয়। পরে খবর পেয়ে নিহতের বড় ভাই কামারুল ইসলাম রাশেদ সৈয়দপুর থানায় গিয়ে মরদেহটি তার ছোট ভাই রাকিবুল ইসলাম রকির বলে শনাক্ত করেন।

নিহত রকির বড় ভাই ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে অধ্যয়নরত কামারুল ইসলাম রাশেদ জানান, ঘটনার দিন তার ভাই গ্রামের বাড়ি যাওয়ার কথা বলে বাসা থেকে বেরিয়ে যায়। পরে রাতে তার মুঠোফোনে কল করে বলা হয় আপনার ভাই সমস্যায় পড়েছে। আপনারা দ্রুত আসেন। এর পর থেকে আর ওই নম্বরে যোগাযোগ করে পাওয়া যায়নি। আর তার ভাইয়ের এ ধরনের করুণ মৃত্যুর কোনো কারণও তারা খুঁজে পাচ্ছেন না।

তিনি অভিযোগ করে বলেন, তার ছোট ভাই রাকিবুল ইসলাম রকিকে হত্যা করে ঘটনাটি ভিন্ন খাতে নেওয়ার জন্য গাছে লাশ ঝুলিয়ে রাখা হয়েছে। তবে তার ভাই হত্যাকান্ডটি প্রেমঘটিত হতে পারে বলে দাবি করেন।

সৈয়দপুর থানার ডিউটি অফিসার সহকারী উপ-পরিদর্শক (এএসআই) নিমাই চন্দ্র রায় জানান, এ ঘটনায় থানায় একটি অপমৃত্যু মামলা হয়েছে। লাশ ময়নাতদন্তের জন্য নীলফামারী আধুনিক সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

আন্দোলন৭১/শাহজাহান আলী/এস