ফখরুলের আসনে উপনির্বাচন ২৪ জুন

image

নিজস্ব প্রতিবেদক-

বগুড়া-৬ আসন থেকে নির্বাচিত বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর শপথ না নেওয়ায় আসনটি শূন্য ঘোষণা করা হয়। এই আসনে উপনির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে আগামী ২৪ জুন। 

বুধবার (৮ মে) নির্বাচন কমিশন এই নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করেছে।

এর আগে মির্জা ফখরুল শপথ না নেওয়ায় ৩০ এপ্রিল আসনটি শূন্য ঘোষণা করেন স্পিকার। এর আগের দিন (২৯ এপ্রিল) বিএনপি থেকে নির্বাচিত চারজন শপথ নিলেও শপথ নেননি মির্জা ফখরুল। সংবিধান অনুযায়ী শূন্য ঘোষণার ৯০ দিনের মধ্যে নির্বাচনের বাধ্যবাধকতা আছে।

তফসিল অনুযায়ী এই উপনির্বাচনে মনোনয়নপত্র জমা দেওয়ার শেষ দিন ২৩ মে। মনোনয়নপত্র বাছাই ২৭ মে। প্রার্থিতা প্রত্যাহারের শেষ দিন ৩ জুন। এই আসনে ভোটগ্রহণ হবে ইভিএম মেশিনে। ভোট হবে সকাল ৯টা থেকে বিকাল ৫টা পর্যন্ত।

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে দুটি আসন থেকে নির্বাচন করে একটিতে জয়লাভ করেন মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। বগুড়া-৬ আসনে ২ লাখ ৫ হাজার ৯৮৭ ভোট পেয়ে বিজয়ী হন তিনি। তার প্রতিদ্বন্দ্বী মহাজোটের জাতীয় পার্টির প্রার্থী নূরুল ইসলাম ওমর পান ৩৮ হাজার ৯৬১ ভোট। বগুড়া-৬ আসন থেকে এর আগে খালেদা জিয়া নির্বাচনে দাঁড়াতেন। এবার তিনি জেলে থাকায় মির্জা ফখরুল ওই আসনে নির্বাচন করেন।

গত ৩০ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে অংশ নিয়ে মাত্র ছয়টি আসনে জয় পায় বিএনপি। গণফোরামের দু'টি মিলিয়ে ঐক্যফ্রন্ট পায় মোট আটটি আসন। নির্বাচনে ভোট ডাকাতির অভিযোগ তুলে পুনর্নির্বাচনের দাবি তোলেন তারা। নির্বাচিতরা সংসদ সদস্য হিসেবে শপথ নেবেন না বলেও ঘোষণা দেওয়া হয় বিএনপি ও ঐক্যফ্রন্টের পক্ষ থেকে।

এসবের মধ্যেই শপথ নেন গণফোরামের সুলতান মনসুর ও মোকাব্বির খান। এরপর ২৫ এপ্রিল শপথ নেন ঠাকুরগাঁও-৩ আসন থেকে নির্বাচন করে বিজয়ী হওয়া জাহিদুর রহমান। এর জেরে ২৭ এপ্রিল তাকে দল থেকে বহিষ্কার করা হয়।

জাহিদুরকে ২৭ এপ্রিল বহিষ্কার করা হলেও ২৯ এপ্রিল শপথ নেন বিএনপির আরও চারজন। তারা হলেন- চাঁপাইনবাবগঞ্জ-২ আসনের মো. আমিনুল ইসলাম, চাঁপাইনবাবগঞ্জ-৩ আসনের মো. হারুনুর রশীদ, ব্রাহ্মণবাড়িয়া-২ আসনের আবদুস সাত্তার ভূঁইয়া এবং বগুড়া-৪ আসনের মোশাররফ হোসেন।

২৯ এপ্রিল আরও চারজন শপথ নেওয়ার পর ফখরুল বলেছিলেন, দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের নির্দেশে ওই চারজন শপথ নিয়েছেন।

আন্দোলন৭১/এস