ঢাকা মঙ্গলবার,২০,আগস্ট, ২০১৯

ভারতীয় গরু না আসলে লাভবান হবে দেশীয় খামারিরা

image

ফয়সাল কবির, লক্ষ্মীপুর থেকে-

লক্ষ্মীপুরে কোরবানী ঈদকে লক্ষ্য করে গরু মোটাতাজা করতে ব্যাস্ত খামারিরা

সরেজমিনে কয়েকটি খামারে গিয়ে দেখা যায়কোরবানি ঈদকে সামনে রেখে প্রাকৃতিক খাদ্যে গরু মোটাতাজাকরণ প্রক্রিয়া চলছে ঈদকে লক্ষ্য করে এখানকার খামারিরা নয় থেকে দশ মাস আগে দেশীয় জাতের গরু ক্রয় করেন এরপর দেশীয় খাবার খড়, ভূষি খাইয়ে মোটাতাজা করা হয় বলে জানান খামারিরা

সদর উপজেলার গংগাপুর গ্রামের মো. হাশেম মিয়া আন্দোলন৭১ নিউজকে বলেন, আমার প্রবাস জীবনের যখন ছিলাম তখন উদ্দেশ্য ছিলো দেশে এসে একটা গরুর খামার করব সেই খামারে তিন থেকে চার জন লোকের কর্মসংস্থান হবে। সেই সুবাদে লক্ষ টাকা দিয়ে গরুর খামার তৈরি করি। ১২ লক্ষ টাকা দিয়ে যশোর রাজশাহী থেকে গরু ক্রয় করি


খামারি হাশেম মিয়া। ছবিঃ আন্দোলন৭১ ডট কম।

তিনি বলেন, ঈদের বাজারে কি হয় আমি জানিনা তবে আমি আশাবাদী লাভবান হবো ভারত থেকে গরু না আসলে আমরা খামারিরা লাভবান হবো আশাবাদী  

চররুহুতা, নন্দনপুর, গোপুনাথপুরসহ বেশ কয়েকজন খামার মালিক আন্দোলন৭১ নিউজকে জানান, প্রতিবছর কোরবানি ঈদের এক থেকে দেড় মাস পর উত্তরাঞ্চলের রাজশাহী যশোর বিভিন্ন স্থান থেকে বিভিন্ন জাতের গরু কিনে আনেন তারা এসব গরুকে খৈল, ভূসি, খুদের ভাত, খড় সবুজ ঘাস খাইয়ে এবং পরিচর্যা করে মোটাতাজা করে তোলেন

এরপর খামার মালিকরা কোরবানির ঈদের আগে লক্ষ্মীপুরে পৌর গরু বাজার, চরবংশী হাট, মোল্লারহাট সহ বিভিন্ন বাজারে  নিয়ে গরুগুলো বিক্রি করেন

এছাড়া অনেক ক্রেতারা গরু খামার থেকে কিনে নিয়ে যান এতে খামারিরা লাভবান হয়। তারা আরও জানান, মানবদেহের জন্য ক্ষতিকারক কোনো ঔষুধ গরু মোটাতাজাকরণে তারা ব্যবহার করেন না

আন্দোলন৭১/কাজী