মার্কিন 'ফোর্বস'র সফল উদ্যোক্তার দুই বাংলাদেশি

image

ডেস্ক নিউজ-

প্রভাবশালী মার্কিন সাময়িকী ‘ফোর্বস’। তাদের অনূর্ধ্ব-৩০ এশীয় সফল উদ্যোক্তার তালিকায় স্থান পেয়েছেন বাংলাদেশের দুই তরুণ। তারা হলেন, পাঠাও'র সহ-প্রতিষ্ঠাতা হুসেইন ইলিয়াস ও কার্টুনিস্ট মোরশেদ মিশু।

টানা চতুর্থবারের মতো এশিয়া প্যাসিফিক অঞ্চলের ২৩টি দেশ থেকে বিভিন্ন ক্যাটাগরিতে সমাজে অবদান রাখা দুই হাজার সফল ও তরুণ উদ্যোক্তা মনোনয়ন পেয়েছিলেন। এর মধ্য থেকে বিচারকদের বাছাই করা অনূর্ধ্ব ৩০ বছর বয়সী ৩০০ জন সফল তরুণ উদ্যোক্তা নিয়ে ২০১৯ সালের ‘থার্টি আন্ডার থার্টি’ তালিকাটি প্রকাশ করেছে ফোর্বস এশিয়া।

হুসেইন ইলিয়াসের পরিচয় ও সফলতা-

হুসেইন ইলিয়াস ও শিফাত আদনান (ঊর্ধ্ব-৩০) একসঙ্গে বাংলাদেশের প্রথম রাইড শেয়ারিং, অন-ডিমান্ড লজিস্টিকস ও ফুড ডেলিভারি প্ল্যাটফর্ম সার্ভিস ‘পাঠাও’ প্রতিষ্ঠা করেন।

বর্তমানে বাংলাদেশের পাঁচটি শহর ও নেপালের কাঠমান্ডুতে মোটরবাইক ও গাড়ি শেয়ারিং সার্ভিসের মাধ্যমে মিলিয়ন যাত্রীকে সেবা দিচ্ছে পাঠাও ।

পাঠাওয়ের অন্যতম প্রধান বিনিয়োগকারী ইলিয়াস এটিকে বাংলাদেশের ‘সুপার অ্যাপ’ করার চিন্তা করছেন।

ফোর্বস ওয়েবসাইটের তথ্য অনুযায়ী, পাঠাও এখন পর্যন্ত চার রাউন্ডে ১২.৮ মিলিয়ন মার্কিন ডলারের বেশি তহবিল পেয়েছে। এর বর্তমান মূল্য ১০০ মিলিয়ন মার্কিন ডলারের বেশি।

মোরশেদ মিশুর পরিচয় ও সুফলতা-

২০১৮ সালের শুরুর দিকে বাংলাদেশি কার্টুনিস্ট মোরশেদ মিশু তার কলমের মাধ্যমে যুদ্ধ নির্মম ও বেদনাদায়ক ছবিগুলো আনন্দদায়ক শিল্পে রূপান্তরিত করতে শুরু করেন। তিনি এসব কার্টুনের মাধ্যমে দেখানোর চেষ্টা করেছিলেন যে, সহিংসতা বা যুদ্ধ না থাকলে পৃথিবীটা কত সুন্দর হতো।

তার এসব কার্টুন ভাইরাল হয়ে যাওয়ার পর, মিশুকে 'গ্লোবাল হ্যাপিনেস চ্যালেঞ্জ' পদকে ভূষিত করা হয়। এরপর তিনি বাংলাদেশের বিভিন্ন সংবাদপত্রের কার্টুনিস্ট হিসেবে নিযুক্ত হন। বর্তমানে তিনি বাংলাদেশের জনপ্রিয় ব্যাঙ্গাত্মক ম্যাগাজিন উন্মাদ এর সহকারী সম্পাদক এবং মোরশেদ মিশু ইলাস্ট্রেশনের প্রতিষ্ঠাতা

আন্দোলন৭১/এস