শনিবার,২৭ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ অপরাহ্ন

শীতে কদর বাড়ছে ভাপা পিঠার

রিপোর্টারের নাম: আন্দোলন৭১
  • আপডেট টাইম : শনিবার, ১২ ডিসেম্বার, ২০২০ ১৬ ৩৪

হাবিপ্রবি প্রতিনিধিঃ

চলছে হেমন্ত। ঘন কুয়াশায় আর কনকনে ঠান্ডায় ঢেকে গেছে পুরো দেশ। এমন সময় ভাপা পিঠা কার না ভালো লাগে! সকল বয়সী মানুষের কাছেই ভাপা পিঠার কদর সমান। ব্যস্ত জীবনের মানুষগুলো তাদের প্রিয় ভাপা পিঠার স্বাদ পেতে ভাপা পিঠা বিক্রির দোকানেই ভিড় জমান। 

চালের গুড়া, নারিকেল আর গুড়ের সমন্বয়ে তৈরি এ ভাপা পিঠা এক গ্রামীণ ঐতিহ্য। শীত মৌসুমে গ্রামীণ বধূরা রকমারি পিঠা তৈরি করেন। শীতের পিঠার মধ্যে ভাপা পিঠা একটি অন্যতম পিঠা। ভাপা পিঠা আবার হরেক রকম পদ্ধতিতে তৈরি করা হয়। কখনো মিষ্টি ভাপা, কখনো ঝাল ভাপা। খেজুর রস দিয়ে ভাপা পিঠা খেতে বড়ই সুস্বাদু ও মুগ্ধকর। ভাপা পিঠাসহ কয়েক ধরণের ভর্তা দিয়ে গরম গরম চিতই পিঠার কদর সব বয়সীদের মাঝেই দেখা যায়।

কিন্তু সময়ের সাথে মানুষ কর্মব্যস্ত হওয়ার কারণে ঘরে ভাপা পিঠা তৈরির প্রচলন ক্রমশই কমছে। তাই কদর বাড়ছে ভাপা পিঠা দোকানিদের। শীতের সকাল কি সন্ধ্যা সব সময়ই সমান ভিড় থাকে ভাপা পিঠার দোকানে।

শীত এলেই শহর ও গ্রামীণ হাটবাজারে নানা রকম পিঠা বিক্রি করা হয়। বিশেষ করে ভাপা পিঠা, তেলের পিঠা ও চিতল পিঠা।এসব পিঠার সমাদর সবখানেই সমানভাবে রয়েছে।শীত বাড়ার সাথে সাথে শহর ও গ্রামীণ হাট-বাজারে ফুটপাতে শীতের পিঠার ব্যবসা জমে উঠছে।

দিনাজপুরের স্থানীয় বাজার,গ্রাম ও শহরের ফুটপাতে পিঠা ব্যবসায়ীদের পিঠা বিক্রির হিড়িক পড়েছে। ভোর থেকে সকাল এবং বিকাল থেকে গভীর রাত পর্যন্ত শহর-গ্রামীণ বাজার ও বিভিন্ন জায়গায় চলে শীতের পিঠা বিক্রির ধুম। শহরের অলিগলিতে রাস্তার আশপাশে পিঠেপুলির ভ্রাম্যমাণ দোকানও বসে।এসব দোকানে কিশোর থেকে শুরু করে বয়স্ক লোকেরা পিঠা তৈরি করে ক্রেতার কাছে বিক্রি করেন। এ পিঠা বিক্রি করে সংসার চালায় তারা।

দিনাজপুরের এক ভ্রাম্যমাণ পিঠা বিক্রেতা বলেন,প্রতি শীত মৌসুমে পিঠা বিক্রি করি। এসময় তার প্রতিদিন প্রায় ৩-৪ হাজার টাকা বিক্রি হয়। শীতের শুরুতে একটু ক্রেতা কম হলেও শীত যত বাড়বে ততই ক্রেতাও বাড়বে বলে জানান তিনি।

শিশু-কিশোর-বয়োবৃদ্ধ সব বয়সীদেরকেই পিঠার দোকানে ভীড় করতে দেখা যায়।সকল বয়সের মানুষের এক সাথে পিঠা খাওয়া দেখে মনে হতে পারে কোন এক উৎসব চলছে।

আন্দোলন৭১/ আজিজুর/ইএইচ

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..
© All rights reserved © 2018 Andolon71
Theme Developed BY Rokonuddin